প্রীতিলতা লিড নিউজ

প্রধানমন্ত্রী ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে চান: স্পিকার

বিএনএন ৭১ ডটকম
ঢাকা: তথ্য প্রযুক্তিতে আজকের যুব সমাজকে তরুন সমাজকে যুক্ত করার জন্য, তাদেরকে এগিয়ে আনার জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমুহে শেখ রাসেল কম্পিউটার ল্যাব স্থাপনসহ কাজ করছে সরকার। তিনি বলেন, কম্পিউটার প্রশিক্ষণ খুবই জরুরি। সবার হাতে হাতে এখন মোবাইল ফোন, ইন্টারনেট সংযোগ, সেটা ডিজিটাল বাংলাদেশ হওয়ার কারণে প্রত্যন্ত অঞ্চল পর্যন্ত পৌঁছে দেয়া সম্ভব হয়েছে। ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার থেকে নানা ধরণের তথ্য প্রযুক্তির সেবা পাচ্ছে মানুষ। বৃহস্পতিবার বিকেলে মহান জাতীয় সংসদের স্পিকার ও পীরগঞ্জ আসনের এমপি ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী জাহাঙ্গীরাবাদ উচ্চবিদ্যালয় মাঠে মাদক নিয়ন্ত্রণ, বাল্যবিবাহ নিরোধ, মাতৃমৃত্যু হ্রাসকরণ বিষয়ক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন।

পাঁচগাছি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবদুল কুদ্দুসের সভাপতিত্বে ওই সভায় রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ছায়াদত হোসেন বকুল, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক শাহিদুল ইসলাম পিন্টু, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এ্যাড. আজিজুর রহমান রাঙ্গা, সহসভাপতি ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোনায়েম সরকার মানু, সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র এএসএম তাজিমুল ইসলাম শামীমসহ ওই প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক রেজাউল করিম স্বাগত বক্তব্য রাখেন। স্পিকার শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, বর্তমানে শিক্ষার্থীরা সুবর্ণ সময়ে অবস্থান করছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার বছরের শুরুতে বিনামুল্যে পাঠ্যপুস্তক, উপবৃত্তিসহ বিশেষ সুযোগ সুবিধা দিয়েছে। মায়েদের হাতে মোবাইল ফোন তুলে দিয়ে উপবৃত্তির টাকা নিশ্চিত করেছে। যাতে সঠিক সময়ে শিক্ষার্থীরা সেই টাকা কাজে লাগাতে পারে। এছাড়াও মেয়েদের সমানভাবে লেখাপড়ায় এগিয়ে নিতে, কমবয়সে কোন মেয়েকে যাতে বাল্যবিবাহ দেয়া না হয়, সেই ব্যাপারে সারা বাংলাদেশে ব্যাপক সচেতন মুলক কার্যক্রম গ্রহন করা হয়েছে। তার কারণে আজকে অনেক অনেক ইতিবাচক পরিবর্তন দেখতে পাচ্ছি। আজকে আমাদের মেয়েরা সচেতন, আমাদের অভিভাবকরা সচেতন, আমাদের পিতা-মাতারা সচেতন, আমাদের শিক্ষকরা সচেতন। আমরা চাই আমাদের মেয়েরা শিক্ষিত হোক, উচ্চ শিক্ষা গ্রহন করুক এবং তারা সমাজ, পরিবার ও জাতীয় জীবনে অবদান রাখুক। তিনি মায়েদের উদ্দেশ্যে বলেন, বর্তমান সরকার দরিদ্র মায়েদের জন্য ভিজিডির মাধ্যমে প্রতিমাসে ৩০ কেজি চাল, বয়স্কভাতা, বিধবাভাতা, মাতৃকালিন ভাতাসহ বিভিন্ন ভাতা এবং বিশেষ প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা গ্রহন করেছে।

স্পিকার বলেন, কোন উন্নয়নের ক্ষেত্রে কেউ পিছিয়ে থাকবে না, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একটি ক্ষুধামুক্ত দারিদ্রমুক্ত উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে চান, ২০৪১ সালের মধ্যে আমরা বাংলাদেশকে একটি উন্নত বাংলাদেশ হিসেবে গড়তে চাই, আর সেজন্য প্রধানমন্ত্রী যে কাজ করে যাচ্ছেন সেটার কারণে ২০২১ সালের মধ্যে এখন নি¤œ মধ্যম আয়ের দেশ মধ্যম আয়ের দেশ হবে। সেটা খুব বেশী দুরে না। স্পিকার বলেন, বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে এগিয়ে যাচ্ছে, উন্নত দেশের পথে এগিয়ে যাচ্ছে সে ব্যাপারে আগামি ২২ মার্চ সারা বাংলাদেশ উৎসবের মাধ্যমে ঘোষনা আসবে। স্পিকার অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করতে আবারও পীরগঞ্জবাসীর সেবা করার সুযোগ চান। এর আগে সকালে পীরগঞ্জ জেলা পরিষদ ডাকবাংলা প্রাঙ্গণে দারিদ্র মায়েদের মাঝে তিনি কম্বল বিতরণ করেন। এ সময় রংপুরের জেলা প্রশাসক এনামুল হাবিব, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমল কুমার ঘোষ বক্তব্য রাখেন। পরে তিনি বড়দরগাহ ও শানেরহাট ইউনিয়ন হয়ে উপজেলার প্রত্যন্ত পল্লী পাঁচগাছি ইউনিয়নের জাহাঙ্গীরাবাদ উচ্চবিদ্যালয় মাঠে আসেন। এ সময় রাস্তায় রাস্তায় হাজার হাজার নারী-পুরুষ স্পিকারকে স্বাগত জানান। তিনি মুগ্ধ হয়ে অর্ধশতাধিক স্পটে নেমে মায়েদের সাথে নানা বিষয়ে কথা বলেন। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী গত বুধবার সড়কপথে গাইবান্ধা হয়ে রাতে পীরগঞ্জে আসেন।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *